ডাকপিয়ন

ভারতে ক্রমশই বাড়ছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের তাণ্ডব

ভারতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত জনজীবন। প্রতিদিনই আক্রান্ত হচ্ছে বিপুল সংখ্যক মানুষ। যুবক থেকে বৃদ্ধ কেউ বাদ পড়েনি করোনার ভয়াল থাবা থেকে। অক্সিজেন স্বল্পতা মানুষকে ঠেলে দিচ্ছে করোনার কোলে। প্রতিদিনই দেশজুড়ে ভাঙছে করোনা আক্রান্তের রেকর্ড। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ভারতে আরও ৩ হাজার ৯১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে চার লাখ ১৪ হাজার ১৮৮ জনের। শনাক্তে সংখ্যার দিক দিয়ে এটিই এখন সর্বোচ্চ।

বৃহস্পতিবার রাতের সর্বশেষ এতথ্য শুক্রবার সকালে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভি।

এর আগে বুধবার ভারতে একদিনে ৩ হাজার ৯৮০ জনের মৃত্যু হয় করোনায়, আর এই ভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত হয় ৪ লাখ ১২ হাজার ৯৫ জন। মঙ্গলবার দেশটিতে করোনায় রেকর্ড সংখ্যক ৩ হাজার ৭৮০ জন করোনায় মারা যান। আগের দিন সোমবার মারা যান ৩ হাজার ৪৪৯ জন। আর রোববার মারা যান ৩ হাজার ৪৫৫ জন।

ভারতজুড়ে করোনার ভ্যাকসিন কার্যক্রম চালু থাকলেও স্বাস্থ্যসেবা খাত অনেকটাই ভেঙে পড়েছে। রোগী সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতালগুলো। অভাব দেখা দিয়েছে অক্সিজেন ও প্রয়োজনীয় ঔষধেরও। এই ঔষধ, অক্সিজেন সংকটের মধ্যেও কিছু সেচ্ছাসেবী সংগঠন কাজ করছে মাঠে, মানুষকে ক্রান্তিলগ্নকালীন সময়ে বাসায় বাসায় পৌঁছে দিচ্ছে অক্সিজেন এরকমই একটা তাৎপর্যপূর্ণ সংগঠন হলো ভারতীয় কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিআই) এর সেচ্ছাসেবী টিম রেড ভলেন্টিয়ার্স। তারা মানুষের কলে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মানুষের কাছে পৌঁছে দিচ্ছে অক্সিজেন।

বিশেষজ্ঞরা এখন ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা করছেন। তারা বলছেন, তৃতীয় ঢেউ ঠেকানো যাবে না, বরং ভ্যাকসিন আরও উন্নত করতে হবে।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহানে প্রথম করোনার অস্তিত্ব শনাক্ত হয়। এরপর সারাবিশ্বে তা ছড়িয়ে পড়ে।

আরও পড়ুন...

ইউনাইটেড এয়ারের ২৪টি বিমান চলাচল বন্ধ

admin

সজল-অর্ষার ‘অতঃপর যা হলো’

admin

করোনা টিকা নিলেন শেখ রেহানা

admin