ডাকপিয়ন

সৃজনশীলতা

আশ্চর্য ছন্দপতন !

ঝলক গোপ পুলক
মাহাথির মোহাম্মদ: অশুভ আণুবীক্ষণিক সন্ত্রাস কেড়ে নিয়েছে আমাদের প্রেমতাড়িত বিকেলদের। প্রেমিক ভুলে গেছে তার প্রেমিকার বুকের অধ্যায়। তিক্ত চায়ের স্বাদ আমাদের সমস্ত রুচিবোধকে তিরস্কার করছে

জীবন এক পত্রিকার নাম

ঝলক গোপ পুলক
অনিক মন্ডল: ইনকিলাব জিন্দাবাদ বলে, চেঁচিয়ে উঠে কিছু দিনমজুর। তাদের ঘরে আজও চাল ফোঁটেনি। একই ঘাটের মাঝি তারা কেও খোঁজে সর্ষে দানা আবার কেও ইলিশ

আইনের দরজা

ঝলক গোপ পুলক
মূল – ফানৎ্স কাফকা ভাষান্তর – তানভীর আকন্দ আইনের দরজায় প্রহরী দাঁড়িয়ে। গেঁয়ো এক লোক এসে ভেতরে যাওয়ার আবেদন করলে প্রহরী তাকে বাঁধা দেয়— এই

নগ্নতার উল্লাস

ঝলক গোপ পুলক
সাইফুল ইসলাম: ধোঁয়ার বুকে ছলনার মেয়াদ উত্তীর্ণ বিষ। নেশা করে খেলা। সভ্যতার পোষাকের ভিতরে নগ্নতার উল্লাস। কাঁপে আত্মা। শীতের মৌসুমে গ্রীষ্মের ছুটি। দুঃখী চাঁদের আলোতে

সন্ধ্যর নাট্যশালা

ঝলক গোপ পুলক
সিদ্দিকী হারুন: শহর জুড়ে প্রেতাত্মার চোখের মতো সান্ধ্য অন্ধকার রাস্তার দু’পাশে সবগুলো দরজা বন্ধ। মাঝ রাজপথ ধরে হেঁটে যেতে যেতে ক্লান্ত হয়ে পড়ি অবশেষে দরজায়

ডাকপিয়ন ঈদ সংখ্যা ” আনন্দমেলা “

ঝলক গোপ পুলক
গল্প:  বদলে যাওয়া আনন্দের রঙ রুমা মোদক আমার অনেক ঈদ ছিলো। কৈশোর থেকে যৌবন। সেই বৃত্তান্ত বলি, আর বলি আমার ঈদ হারিয়ে যাবার বৃত্তান্ত।দুটোরই বড়

” মা ” ভবিষ্যতের বুনিয়াদ

ঝলক গোপ পুলক
দ্বিপায়ন দীপ্ত: ‘মা’ একটি শব্দ মাত্র, কিন্তু এই শব্দের বিস্তৃতি বিশাল। জঠরের প্রথম অনুভূতি থেকে মা বুনতে থাকেন সন্তানকে ঘিরে স্বপ্ন, সম্ভাবনা। আর সন্তানের প্রথম

মা

ঝলক গোপ পুলক
শুক্লা পঞ্চমী: মা তোমাকে দেখেছি মাটিরূপিনী সাদাসিধে সবুজ বালিকা ঈশ্বরের উদয় অস্ত দিনের ত্রিরূপ তুমি যখন কঠিন হও তখন তোমাকে নামানো যায় না আর যখন

আমার মা

ঝলক গোপ পুলক
হিমাদ্রী চৌধুরী: ঘরভর্তি বাসন , কোসন , প্লেট , চাদর , মশারিতে আমার মা তার কবিতা লিখেন , আঁকেন অদৃশ্য শব্দজালের হরিণ দ্বন্দ্ব! আমরা ভালো

চির – নতুনের দিলে ডাক, আজ পঁচিশে বৈশাখ

ঝলক গোপ পুলক
আফরোজা সুলতানা চৌধুরী: আজ রবীন্দ্র জয়ন্তী। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬০তম জন্মদিন। ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৫ শে বৈশাখ আজকের দিনে গুরুদেব, কবি গুরু, বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্ম